ইমেইল : info@crime-flash.com



» রাজনীতি

Tuesday 12th of May 2015 অ- অ+

পুলিশ মামলা না নেয়ায় নিরাপত্তাহীনতায় ভুক্তভোগী পরিবার: বাগেরহাটে আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যার চেষ্টাকারী সন্ত্রাসীরা ধরাছোয়ার বাইরে

বাগেরহাট প্রতিনিধি,ক্রাইম ফ্ল্যাশ ॥
বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার বাইনতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ ফকিরকে হত্যার চেষ্টাকারীরা এখনও ধরা ছোয়ার বাইরে রয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে এলাকায় সভা সমাবেশ করা হলেও পুলিশ এখনও আসামীদের আটক করতে পারেনি। ফলে আব্দুল্লাহ ফকির ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যেদিয়ে দিনাতিপাত করছেন।
আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল্লাহ ফকির সোমবার দুপুরে মোবাইলে এ প্রতিবেদককে জানান, ২৮ এপ্রিল রাতে বাড়ি ফেরার পথে তার উপর চিহ্নিত সন্ত্রাসী, সুন্দরবনের কুখ্যাত শুকুর ডাকাত তার উপর হামলা করে। এসময় তার ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে শুকুর ডাকাত ও তার সহযোগীরা ফাঁকা গুলি করতে করতে পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসি ঘটনাস্থলে তল্লাসী চালিয়ে একটি বন্দুকের গুলি, একটি গুলির খোসা ও একটি মোবাইল সেট উদ্ধার করে। মোবাইল সেটের নাম্বার দেখে এটি রামপাল উপজেলার বারুইপাড়া গ্রামের মৃত দলিল উদ্দিনের ছেলে কুখ্যাত ডাকাত শুকুর হাওলাদরের বলে নিশ্চিত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। উদ্ধারকৃত মালামাল পুলিশে হস্তান্তর করা হয়। এসময় শুকুরের কল লিষ্ট থেকে ডায়াল ও রিসিভ কলে তার প্রতিপক্ষ চাকশ্রী এলাকার মৃত মোন্তাজ শেখের ছেলে আনিচ শেখ ও মৃত উকিল উদ্দিনের ছেলে আমীর আলী শেখের মোবাইল নাম্বার পাওয়া যায়। আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল্লাহ ফকির বলেন, ইতিপুর্বেও তারা তাকে হত্যা করার ব্যর্থ চেষ্টা করেছে। অবশেষে তারা ভাড়াটিয়া খুনিকে দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করছে। গত ২ মে কুখ্যাত বনদস্যু শুকুরকে চাকশ্রী এলাকায় পেয়ে স্থানীয়রা গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। পুলিশ তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে। কিন্তু সেখান ডাকাত শুকুর হারিয়ে যায়। আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল্লাহ ফকির বলেন, তিনি একাধিক বার থানায় গিয়ে অভিযোগ দেয়ার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে পুলিশ মামলা নেয়নি। তিনি তার পরিবার নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যদিয়ে দিনাতিপাত করছেন বলে তিনি জানান।
এবিষয়ে রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, ঘটনার সময় তিনি রামপাল থানার দায়িত্বে ছিলেন না। মামলা কেন নেয়া হয়নি তা তৎকালিন দায়িত্বে থাকা ওসিই জানেন। আর শুকুরকে হাসপাতাল কতৃপক্ষ রিলিস দিয়েছে।

 

মন্তব্য :



প্রকাশক: মোহাম্মদ কামরুজ্জামান,সম্পাদক: খায়রুল হাসান

নির্বাহী সম্পাদক: ইকবাল হোসেন ভূইয়া

বার্তা সম্পাদক: মোঃ সালেহ আকরাম (মেরিন)

যোগাযোগ: 54/1, নদ্দা-বারিধারা, গুলশান, ঢাকা-1212

 ফোন:02-8419040-41, মোবাইল: +88 01723 204846

ইমেল: crimeflashbd@gmail.com